দীর্ঘ দুই বছর শুয়ে আছেন ড্রেনের ওপর নুরজাহান

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:০২ অপরাহ্ন, নভেম্বর ১০, ২০২০

ছোট একটি কাঠের চৌকিতে দীর্ঘ দুই বছর ধরে শুয়ে আছেন ছিন্নমূল নারী নুরজাহান। নিচে ফেনী পৌরসভার ড্রেন। সেখানে মশা, মাছি ও পোকা কিলবিল করছে।

ড্রেনের দুর্গন্ধে নাকাল এলাকাবাসী পাশের রাস্তা দিয়ে চলতে নাক চেপে রাখেন।  অথচ অসহায় নুরজাহান আক্তার (৫৫) দীর্ঘ দুই বছর শুয়ে আছেন ড্রেনের ওপর।

স্থানীয় মানুষের দেওয়া একটি বালিশ, একটি কাঁথা ও একটি কম্বলই তার সম্বল। প্রথম দেখে মনে হলো এটি কোনো লাশ এখানে পড়ে আছে, নিথর দেহ, একটু পরে নড়চড় দেখে বুঝা গেলো মানুষটি জীবিত আছে। চৌকির এক পাশে কিছু খাদ্য দেওয়া আছে, সেগুলো বাসি হয়ে গেছে অনেক আগে। তারপরও নুরজাহান সেগুলো খেয়ে ক্ষুধা নিবারণ করে। বাসি ধূলোবালি মিশ্রিত খাবারগুলো মাছিও খাচ্ছে, নুর জাহানও খাচ্ছে। এসব খাবার খেয়ে নুরজাহান ডাইরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে গেছে। দীর্ঘদিন এভাবে থাকার কারণে তার পা দুটো অকেজোসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত তিনি। উঠে বসতে পারলেও দাঁড়াতে পারেন না।

জিজ্ঞাসায় নুরজাহান সম্পর্কে জানা যায়- তার বাবার নাম সেকান্দর মিয়া, মায়ের নাম মাসুদা খাতুন। তার মা-ও ভিক্ষাবৃত্তি করেন। তার গ্রাম ফেনীর বারাহীপুর। দরিদ্র পরিবারে জীবনের সূচনা। অন্যের বাসা-বাড়িতে গৃহ পরিচারিকার কাজ করতে করতে বড় হন।  এক সময় স্বামী এক সন্তান ও এক ছেলে সব ছিলো।

এখন স্বামী ছেলে-মেয়ে কেউ জীবিত নেই।  এক পর্যায়ে তিনি রোগাক্রান্ত হয়ে পড়েন। কেউ আর বাসায় কাজ না দেওয়ায় নেমে পড়েন ভিক্ষাবৃত্তিতে। এক সময় তাও বন্ধ হয়ে যায়। এরপর থেকেই ড্রেনের উপর দিনাতিপাত।

স্থানীয় ব্যবসায়ী মো. হারুন জানান,  গত দুই বছর ধরে সে এখানে থাকে, কেউ কিছু দিলে খায়, না দিলে উপোস থাকে। বর্তমানে সে বিনা চিকিৎসায় কষ্টে জীবন অতিবাহিত করছে।

স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর বাহার উদ্দির বাহার জানান, বিষয়টি তিনি দেখবেন।

নিউজ সোর্স: risingbd
ছবি সোর্স: গুগল