ঢাকা ০৫:৪৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৯:৩৫:৪৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০১৯ ১৮৮ বার পড়া হয়েছে

১ জুন ২০১৯ ,বিন্দুবাংলা টিভি .কম,

নাজমা আক্তার   : ভারতে সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়ের দায় নিজের কাঁধে তুলে নিয়ে দলের সভাপতি পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। পরবর্তীতে দলের কার্যনির্বাহী কমিটিথকে রাহুলের পক্ষ থেকে যোগ্য নেতৃত্ব খুঁজে বের করার অনুরোধ জানালে এর ঠিক এক সপ্তাহ পর শনিবার সোনিয়া গান্ধীকে কংগ্রেস পার্লামেন্টারি পার্টি-সিপিপি প্রধান হিসেবে নির্বাচিত করেন কংগ্রেস এমপিরা। ইউনাইটেড প্রেগ্রেসিভ অ্যালাইস-ইউপিএ সভাপতি সোনিয়া গান্ধী এখন থেকে সিপিপি প্রধানের দায়িত্বও পালন করবেন। এনডিটিভি

লোকসভা নির্বাচনের পর শনিবার সিপিপিথর প্রথম বৈঠকটি ছিলো রাহুলের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণার পরে দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত প্রথম বৈঠক।

উল্লেখ্য, লোকসভার ৫৪২ আসনের মধ্যে কংগ্রেস পেয়েছে মাত্র ৫২টি আসন। ২০১৪ সালের পর এটিই দলটির দ্বিতীয় শোচনীয় পরাজয়। অর্থাৎ, আরও ৩টি আসন বেশি পেলে কংগ্রেস লোকসভায় বিরোধীদল হিসেবে গণ্য হওয়ার মর্যাদা লাভ করতো।

এদিকে, কংগ্রেসের পার্লামেন্টারি কমিটির বৈঠকে বিজেপির সঙ্গে প্রতিদিন লড়াই করার ঘোষণা দিয়েছেন রাহুল। তিনি বলেন, দলের ঘুরে দাঁড়াবার প্রয়োজন রয়েছে আর সেট ‘এথ করার সুযোগও কংগ্রেসের আছে।

এর আগেও, বিজেপিথর সঙ্গে মতাদর্শের লড়াই চালিয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন রাহুল। তার মতে, দল পরিচালনের ভার না থাকলে সেই লড়াই তারজন্য সহজ হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

ট্যাগস :

আপডেট সময় : ০৯:৩৫:৪৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ জুন ২০১৯

১ জুন ২০১৯ ,বিন্দুবাংলা টিভি .কম,

নাজমা আক্তার   : ভারতে সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়ের দায় নিজের কাঁধে তুলে নিয়ে দলের সভাপতি পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন রাহুল গান্ধী। পরবর্তীতে দলের কার্যনির্বাহী কমিটিথকে রাহুলের পক্ষ থেকে যোগ্য নেতৃত্ব খুঁজে বের করার অনুরোধ জানালে এর ঠিক এক সপ্তাহ পর শনিবার সোনিয়া গান্ধীকে কংগ্রেস পার্লামেন্টারি পার্টি-সিপিপি প্রধান হিসেবে নির্বাচিত করেন কংগ্রেস এমপিরা। ইউনাইটেড প্রেগ্রেসিভ অ্যালাইস-ইউপিএ সভাপতি সোনিয়া গান্ধী এখন থেকে সিপিপি প্রধানের দায়িত্বও পালন করবেন। এনডিটিভি

লোকসভা নির্বাচনের পর শনিবার সিপিপিথর প্রথম বৈঠকটি ছিলো রাহুলের পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণার পরে দলীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত প্রথম বৈঠক।

উল্লেখ্য, লোকসভার ৫৪২ আসনের মধ্যে কংগ্রেস পেয়েছে মাত্র ৫২টি আসন। ২০১৪ সালের পর এটিই দলটির দ্বিতীয় শোচনীয় পরাজয়। অর্থাৎ, আরও ৩টি আসন বেশি পেলে কংগ্রেস লোকসভায় বিরোধীদল হিসেবে গণ্য হওয়ার মর্যাদা লাভ করতো।

এদিকে, কংগ্রেসের পার্লামেন্টারি কমিটির বৈঠকে বিজেপির সঙ্গে প্রতিদিন লড়াই করার ঘোষণা দিয়েছেন রাহুল। তিনি বলেন, দলের ঘুরে দাঁড়াবার প্রয়োজন রয়েছে আর সেট ‘এথ করার সুযোগও কংগ্রেসের আছে।

এর আগেও, বিজেপিথর সঙ্গে মতাদর্শের লড়াই চালিয়ে যাওয়ার কথা বলেছেন রাহুল। তার মতে, দল পরিচালনের ভার না থাকলে সেই লড়াই তারজন্য সহজ হবে।