ঢাকা ১২:৫৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মেঘনায় দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ৪

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৪:৩৫:২০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুন ২০২০ ১৮৪ বার পড়া হয়েছে

১১ জুন ২০২০, বিন্দুবাংলা টিভি. কম, সেলিম আহাম্মেদ
: কুমিল্লার মেঘনা উপজেলায় বালু ভরাটকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয় এতে উভয় গ্রুপের চার জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহতরা হলেন ইসলামের ছেলে শাহিন, আবুতালেবের ছেলে নবী হোসেন, বিল্লাল হোসেনের ছেলে নুর মোহাম্মদ, দ্বীন মোহাম্মদ। আহতরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা যায়। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ৩ টার দিকে উপজেলার মির্জানগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে মেঘনা থানার এস আই আঃ রহমান ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় শরিফ ও এডভোকেট শামিম এরা চাচা ভাতিজা আভিজাত্যের লড়াই নিয়ে পূর্ব থেকেই এদের মধ্যে সত্রুতা রয়েছে পূর্বে একবার শরিফকে শামিম গ্রুপের লোকেরা পিটিয়ে জখম করে পরে কোন মামলা বা বিচার হয়নি এ নিয়ে এদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছিলো, বর্তমানে উভয় গ্রুপ এলাকায় নিজেদের দল ভারী করার জন্য দুটি সিন্ডিকেট তৈরি করে উভয় সিন্ডিকেট বালু ভরাট করে ব্যবসা করার জন্য দুটি আনলোড ড্রেজার মেশিন স্থাপন করেন ড্রেজারের পাইপ লাইন টানানো ও বালু ভরাট কে কেন্দ্র করে উভয় সিন্ডিকেট সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এ বিষয়ে মেঘনা থানা অফিসার ইনচার্জ আবদুল মজিদ বলেন এদের মধ্যে পূর্বে থেকে সত্রুতা চলছিলো এর জের ধরে এলাকায় আভিজাত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে খবর পাওয়ার সাথে সাথে পুলিশ পাঠানো হয়েছে বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এখনো কোন মামলা হয়নি হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

ট্যাগস :

মেঘনায় দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, আহত ৪

আপডেট সময় : ০৪:৩৫:২০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ জুন ২০২০

১১ জুন ২০২০, বিন্দুবাংলা টিভি. কম, সেলিম আহাম্মেদ
: কুমিল্লার মেঘনা উপজেলায় বালু ভরাটকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয় এতে উভয় গ্রুপের চার জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আহতরা হলেন ইসলামের ছেলে শাহিন, আবুতালেবের ছেলে নবী হোসেন, বিল্লাল হোসেনের ছেলে নুর মোহাম্মদ, দ্বীন মোহাম্মদ। আহতরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা যায়। আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ৩ টার দিকে উপজেলার মির্জানগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে মেঘনা থানার এস আই আঃ রহমান ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় শরিফ ও এডভোকেট শামিম এরা চাচা ভাতিজা আভিজাত্যের লড়াই নিয়ে পূর্ব থেকেই এদের মধ্যে সত্রুতা রয়েছে পূর্বে একবার শরিফকে শামিম গ্রুপের লোকেরা পিটিয়ে জখম করে পরে কোন মামলা বা বিচার হয়নি এ নিয়ে এদের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছিলো, বর্তমানে উভয় গ্রুপ এলাকায় নিজেদের দল ভারী করার জন্য দুটি সিন্ডিকেট তৈরি করে উভয় সিন্ডিকেট বালু ভরাট করে ব্যবসা করার জন্য দুটি আনলোড ড্রেজার মেশিন স্থাপন করেন ড্রেজারের পাইপ লাইন টানানো ও বালু ভরাট কে কেন্দ্র করে উভয় সিন্ডিকেট সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। এ বিষয়ে মেঘনা থানা অফিসার ইনচার্জ আবদুল মজিদ বলেন এদের মধ্যে পূর্বে থেকে সত্রুতা চলছিলো এর জের ধরে এলাকায় আভিজাত্য বিস্তার নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে খবর পাওয়ার সাথে সাথে পুলিশ পাঠানো হয়েছে বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এখনো কোন মামলা হয়নি হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবো।