ঢাকা ০১:৩০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

করোনায় মারা গেলেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৩:৩৭:২১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ জুলাই ২০২০ ১২৬ বার পড়া হয়েছে

২৭ জুলাই ২০২০, আজকের মেঘনা ডটকম, ডেস্ক রিপোর্ট :

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এ কে এম আমানুল ইসলাম চৌধুরী (৮৩) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

আজ দুপুর ১টায় উত্তরা ক্রিসেন্ট হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেছেন।

২০০১ সালের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের যোগাযোগ, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন আমানুল ইসলাম।

শিক্ষাবিদ-বুদ্ধিজীবী ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর ছোট ভাই প্রকৌশলী আমানুল ইসলাম চৌধুরী ১৯৫২ সালে আহসান উল্লাহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করে রাষ্ট্রীয় পুরস্কার লাভ করেন। পাবলিক সার্ভিস কমিশনে প্রকৌশলী বিভাগে পরীক্ষা দিয়ে পুরো পাকিস্তানে প্রথম হন।

কর্ম-জীবনে তিনি বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক, পোর্ট ট্রাস্টের চেয়ারম্যান, ডেসার চেয়ারম্যান ছিলেন। অতিরিক্ত সচিব পদমর্যাদায় তিনি অবসর গ্রহণ করেন। মরহুম হাফিজ উদ্দিন চৌধুরী এবং মরহুমা আছিয়া খাতুনের দ্বিতীয় সন্তান আমানুল ইসলাম চৌধুরীর জন্ম ১৯৩৪ সালে বিক্রমপুরের শ্রীনগরের বাড়ৌইখালি গ্রামে বাবার বাড়িতে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

ট্যাগস :

করোনায় মারা গেলেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা

আপডেট সময় : ০৩:৩৭:২১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ জুলাই ২০২০

২৭ জুলাই ২০২০, আজকের মেঘনা ডটকম, ডেস্ক রিপোর্ট :

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এ কে এম আমানুল ইসলাম চৌধুরী (৮৩) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

আজ দুপুর ১টায় উত্তরা ক্রিসেন্ট হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেছেন।

২০০১ সালের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের যোগাযোগ, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন আমানুল ইসলাম।

শিক্ষাবিদ-বুদ্ধিজীবী ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর ছোট ভাই প্রকৌশলী আমানুল ইসলাম চৌধুরী ১৯৫২ সালে আহসান উল্লাহ ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকে তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগে প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করে রাষ্ট্রীয় পুরস্কার লাভ করেন। পাবলিক সার্ভিস কমিশনে প্রকৌশলী বিভাগে পরীক্ষা দিয়ে পুরো পাকিস্তানে প্রথম হন।

কর্ম-জীবনে তিনি বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক, পোর্ট ট্রাস্টের চেয়ারম্যান, ডেসার চেয়ারম্যান ছিলেন। অতিরিক্ত সচিব পদমর্যাদায় তিনি অবসর গ্রহণ করেন। মরহুম হাফিজ উদ্দিন চৌধুরী এবং মরহুমা আছিয়া খাতুনের দ্বিতীয় সন্তান আমানুল ইসলাম চৌধুরীর জন্ম ১৯৩৪ সালে বিক্রমপুরের শ্রীনগরের বাড়ৌইখালি গ্রামে বাবার বাড়িতে।