ঢাকা ০৯:৩২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০৮ জুন ২০২৪, ২৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল বাবা-ছেলের

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ১১:২১:২৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৯ অক্টোবর ২০২০ ১৫৪ বার পড়া হয়েছে
রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর কোনাপাড়া এলাকায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় বাবা-ছেলে নিহত হয়েছেন। রোববার (১৮ অক্টোবর) এ ঘটনা ঘটে।
নিহত দুজন হলেন- আনিসুর রহমান বাবুল (৫৫) ও তার ছেলে সাদমান রাহিম। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক (ইনচার্জ) বাচ্চু মিয়া।
নিহত আনিসুরের শ্যালক মো. মাহমুদ জানান, তার দুলাভাই আনিসুর রহমান দুই ছেলে ও স্ত্রী নিয়ে মাতুয়াইলের‌ মধ্যপাড়ায় থাকতেন। গ্রিন রোডে তার টাইলসের ব্যবসা আছে। বড় ছেলে সাদমান রাহিম বোরহানউদ্দিন কলেজে স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। তিনি বলেন, সন্ধ্যার দিকে বাবা-ছেলের দুর্ঘটনার খবর পান তারা। ঘটনাস্থলের কাছে প্রথমে একটি হাসপাতালে নেয়া হয় তাদের। সেখানকার চিকিৎসকেরা রাহিমকে মৃত ঘোষণা করেন। তার লাশ বাসায় নেয়া হয়েছে। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় আনিসুরকে ঢামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। রাত পৌনে ১০টার দিকে চিকিৎসকেরা তাকেও মৃত ঘোষণা করেন।
নিহত বাবা-ছেলের প্রতিবেশী সাদমান সাকিব ও জাকারিয়া আহমেদ হাসপাতালে এসেছিলেন। তারা বলেন, আনিসুর রহমানের বড় ছেলে সাদমান রাহিম ও ছোট ছেলে সাদমান ফাহিম রোববার ডেমরা স্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় একটি মোটরসাইকেল সার্ভিস সেন্টারে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে একটি মোটরসাইকেলে সাদমান রাহিম ও তার বাবা আনিসুর রহমান ফিরছিলেন এবং অপর একটি মোটরসাইকেলে ছিলেন সাদমান ফাহিম। কোনাপাড়ার ধার্মিকপাড়া এলাকায় সাদমান রাহিম অন্য একটি মোটরসাইকেলকে অতিক্রম করার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা লেগে ওই দুর্ঘটনার শিকার হন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

ট্যাগস :

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল বাবা-ছেলের

আপডেট সময় : ১১:২১:২৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৯ অক্টোবর ২০২০
রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর কোনাপাড়া এলাকায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় বাবা-ছেলে নিহত হয়েছেন। রোববার (১৮ অক্টোবর) এ ঘটনা ঘটে।
নিহত দুজন হলেন- আনিসুর রহমান বাবুল (৫৫) ও তার ছেলে সাদমান রাহিম। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক (ইনচার্জ) বাচ্চু মিয়া।
নিহত আনিসুরের শ্যালক মো. মাহমুদ জানান, তার দুলাভাই আনিসুর রহমান দুই ছেলে ও স্ত্রী নিয়ে মাতুয়াইলের‌ মধ্যপাড়ায় থাকতেন। গ্রিন রোডে তার টাইলসের ব্যবসা আছে। বড় ছেলে সাদমান রাহিম বোরহানউদ্দিন কলেজে স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। তিনি বলেন, সন্ধ্যার দিকে বাবা-ছেলের দুর্ঘটনার খবর পান তারা। ঘটনাস্থলের কাছে প্রথমে একটি হাসপাতালে নেয়া হয় তাদের। সেখানকার চিকিৎসকেরা রাহিমকে মৃত ঘোষণা করেন। তার লাশ বাসায় নেয়া হয়েছে। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় আনিসুরকে ঢামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়। রাত পৌনে ১০টার দিকে চিকিৎসকেরা তাকেও মৃত ঘোষণা করেন।
নিহত বাবা-ছেলের প্রতিবেশী সাদমান সাকিব ও জাকারিয়া আহমেদ হাসপাতালে এসেছিলেন। তারা বলেন, আনিসুর রহমানের বড় ছেলে সাদমান রাহিম ও ছোট ছেলে সাদমান ফাহিম রোববার ডেমরা স্টাফ কোয়ার্টার এলাকায় একটি মোটরসাইকেল সার্ভিস সেন্টারে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে একটি মোটরসাইকেলে সাদমান রাহিম ও তার বাবা আনিসুর রহমান ফিরছিলেন এবং অপর একটি মোটরসাইকেলে ছিলেন সাদমান ফাহিম। কোনাপাড়ার ধার্মিকপাড়া এলাকায় সাদমান রাহিম অন্য একটি মোটরসাইকেলকে অতিক্রম করার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা লেগে ওই দুর্ঘটনার শিকার হন।