ঢাকা ১১:৫৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ জুন ২০২৪, ২৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যৌন হয়রানির আসামী হলেন উকিল তার নিজের আদালতেই

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৮:৩৮:০৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০ ১৪৮ বার পড়া হয়েছে

যৌন হয়রানির আসামী হলেন উকিল তার নিজের আদালতেই

নিউজ ডেস্কঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে পৌরসভার কৃষ্ণপুরা গ্রামের বাসিন্দা সামসুদ্দিনের সন্তান উক্ত জেলা আইনজীবী শফুরউদ্দিন বিগত তিন বছর যাবত প্রতিবেশী গৃহবধূর দিকে কু-নজর দিয়ে আসছে। তার যৌন লালসা পুরন করাই ছিলো একমাত্র উদ্দেশ্য। শফুরুদ্দিন ঐ গৃহবধূর সঙ্গ পাওয়ার আশায় নানান ছুতয় ছাতায় কুপ্রস্তাব দিতেন। এমনকি সুযোগ পেলে তার আইনি ক্ষমতার বলে জোর খাটাতেন বা হুমকি দিতেন। কিন্তু গৃহবধূ শুরু থেকেই তার কুপ্রস্তাবে রাজি ছিলো না এবং এক সময় পরিস্থিতি ঠিক হয়ে যাবে এমনটা ভেবে সমাজিক মান রক্ষার্থে বিষয়টি আড়ালে রাখার চেষ্টা করতেন।

একপর্যায়ে শফুরুদ্দিনের লালসা চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেলে গত ১১’ই সেপ্টেম্বর বিকেলে প্রতিবেশী গৃহবধূ নিজ ঘরে একা শুয়ে থাকা অবস্থায় ঘরের খিল ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে এবং দুহাত ও মুখ গামছা দিয়ে বাঁধে ও গৃহবধূর শরীরের বিভিন্ন স্থানে হাত দিয়ে স্পর্শ করতে থাকে। ফলে উভয়ের মধ্যেই ধস্তাধস্তি শুরু হয়। ধস্তাধস্তিতে মুখ থেকে গামছা খুলে গেলে চিৎকার চেচামেচিতে আশপাশের লোকজন জরো হয়। এমনকি উপস্থিত সকলকেও মারধর করতে শুরু করে অতঃপর চলে যাওয়ার সময় ঘটনাটি গোপন রাখতে সকলকে হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়।
এবিষয়ে প্রতিবেসী গৃহবধূ বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ধর্ষনের চেষ্টায় আদালতে বিশেষ ট্রাইবুনালে মামলা দায়ের করেন। যাহার নং ২৮৮ । মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কে আদালত কর্তৃক তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয় এবং আগামী ২৫ অক্টোবরের মধ্যে তদন্তের প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়।

এবিষয়ে সোনারগাঁ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, মামলাটি আমার জানা মতে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) তদন্ত করছে এবং এবিষয়ে আদালত থেকে যদি কোনো দায়িত্ব দেয়া হয় আমি অবশ্যই তা পালন করবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

ট্যাগস :

যৌন হয়রানির আসামী হলেন উকিল তার নিজের আদালতেই

আপডেট সময় : ০৮:৩৮:০৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০

যৌন হয়রানির আসামী হলেন উকিল তার নিজের আদালতেই

নিউজ ডেস্কঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে পৌরসভার কৃষ্ণপুরা গ্রামের বাসিন্দা সামসুদ্দিনের সন্তান উক্ত জেলা আইনজীবী শফুরউদ্দিন বিগত তিন বছর যাবত প্রতিবেশী গৃহবধূর দিকে কু-নজর দিয়ে আসছে। তার যৌন লালসা পুরন করাই ছিলো একমাত্র উদ্দেশ্য। শফুরুদ্দিন ঐ গৃহবধূর সঙ্গ পাওয়ার আশায় নানান ছুতয় ছাতায় কুপ্রস্তাব দিতেন। এমনকি সুযোগ পেলে তার আইনি ক্ষমতার বলে জোর খাটাতেন বা হুমকি দিতেন। কিন্তু গৃহবধূ শুরু থেকেই তার কুপ্রস্তাবে রাজি ছিলো না এবং এক সময় পরিস্থিতি ঠিক হয়ে যাবে এমনটা ভেবে সমাজিক মান রক্ষার্থে বিষয়টি আড়ালে রাখার চেষ্টা করতেন।

একপর্যায়ে শফুরুদ্দিনের লালসা চরম পর্যায়ে পৌঁছে গেলে গত ১১’ই সেপ্টেম্বর বিকেলে প্রতিবেশী গৃহবধূ নিজ ঘরে একা শুয়ে থাকা অবস্থায় ঘরের খিল ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে এবং দুহাত ও মুখ গামছা দিয়ে বাঁধে ও গৃহবধূর শরীরের বিভিন্ন স্থানে হাত দিয়ে স্পর্শ করতে থাকে। ফলে উভয়ের মধ্যেই ধস্তাধস্তি শুরু হয়। ধস্তাধস্তিতে মুখ থেকে গামছা খুলে গেলে চিৎকার চেচামেচিতে আশপাশের লোকজন জরো হয়। এমনকি উপস্থিত সকলকেও মারধর করতে শুরু করে অতঃপর চলে যাওয়ার সময় ঘটনাটি গোপন রাখতে সকলকে হুমকি দিয়ে পালিয়ে যায়।
এবিষয়ে প্রতিবেসী গৃহবধূ বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ধর্ষনের চেষ্টায় আদালতে বিশেষ ট্রাইবুনালে মামলা দায়ের করেন। যাহার নং ২৮৮ । মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কে আদালত কর্তৃক তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয় এবং আগামী ২৫ অক্টোবরের মধ্যে তদন্তের প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেয়া হয়।

এবিষয়ে সোনারগাঁ থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, মামলাটি আমার জানা মতে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) তদন্ত করছে এবং এবিষয়ে আদালত থেকে যদি কোনো দায়িত্ব দেয়া হয় আমি অবশ্যই তা পালন করবো।