ঢাকা ১২:৪৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিয়ে করতে লাগবে ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়ন

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৯:৪০:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০ ১৪১ বার পড়া হয়েছে

২৬ নভেম্বর ২০২০, আজকের মেঘনা. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলায় বিয়ে করতে ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়ন নেয়ার দাবি উঠেছে। বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে আয়োজিত আলোচনা সভায় উপস্থিত সকলেই এ দাবি তুললে জীবননগর উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি ভেবে দেখার কথা জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) এনজিও সংস্থা ওয়েভ ফাউন্ডেশন ও বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে কাজ করা জীবননগর উপজেলা লোক মোর্চার আয়োজনে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে করণীয় সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জীবননগর উপজেলা লোকমোর্চার সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা লোকমোর্চার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ অমলের সঞ্চালনায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বেলা ১১ টার সময় অনুষ্ঠিত মত বিনিময় সভায় বক্তব্য দেন জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মুনিম লিংকন, জীবননগর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকি, জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মো. মেহেদী আল মাসুম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শ্রী দিনেশ চন্দ্র, জীবননগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুন্সী মাহবুবর রহমান বাবু, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জিএ জাহিদুল ইসলাম, উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্যদের সভাপতি সালাউদ্দীন কাজল, সেনেরহুদা জান্নাতুল খাদরা দাখিল মাদরাসার সভাপতি আবু জাফর, সাংবাদিক কাজী সামসুর রহমান চঞ্চল, আকিমুল ইসলাম, আতিয়ার রহমান, উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান, শাহিনুর রহমান, ওয়েভ ফাউন্ডেশনের কামরুজ্জামান যুদ্ধ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, জীবননগর উপজেলাকে বাল্যবিয়েমুক্ত করতে বাল্যবিয়ে দেয়ার কাজে সহযোগিতাকারী, কাজী এবং অভিভাবকদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে। এছাড়া মতবিনিময় সভায় উপস্থিত সকলেই দাবি তোলেন বিয়ের আগে বয়স প্রমাণের জন্য সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছ থেকে প্রত্যয়নপত্র নিতে হবে।

ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র ছাড়া কোনো কাজী বিয়ে পড়ালে ওই কাজির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে। মতবিনিময় সভায় উপজেলার ৩৪ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদরাসার পরিচালনা পর্যদের সভাপতি এবং প্রধান শিক্ষক, লোকমোর্চার সদস্য, সাংবাদিক, সুধী বৃন্দসহ শতাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

ট্যাগস :

বিয়ে করতে লাগবে ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়ন

আপডেট সময় : ০৯:৪০:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০

২৬ নভেম্বর ২০২০, আজকের মেঘনা. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলায় বিয়ে করতে ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়ন নেয়ার দাবি উঠেছে। বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে আয়োজিত আলোচনা সভায় উপস্থিত সকলেই এ দাবি তুললে জীবননগর উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি ভেবে দেখার কথা জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) এনজিও সংস্থা ওয়েভ ফাউন্ডেশন ও বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে কাজ করা জীবননগর উপজেলা লোক মোর্চার আয়োজনে বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে করণীয় সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

জীবননগর উপজেলা লোকমোর্চার সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে এবং উপজেলা লোকমোর্চার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ অমলের সঞ্চালনায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বেলা ১১ টার সময় অনুষ্ঠিত মত বিনিময় সভায় বক্তব্য দেন জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম মুনিম লিংকন, জীবননগর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আয়েশা সুলতানা লাকি, জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মো. মেহেদী আল মাসুম, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শ্রী দিনেশ চন্দ্র, জীবননগর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মুন্সী মাহবুবর রহমান বাবু, সাংবাদিক সমিতির সভাপতি জিএ জাহিদুল ইসলাম, উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্যদের সভাপতি সালাউদ্দীন কাজল, সেনেরহুদা জান্নাতুল খাদরা দাখিল মাদরাসার সভাপতি আবু জাফর, সাংবাদিক কাজী সামসুর রহমান চঞ্চল, আকিমুল ইসলাম, আতিয়ার রহমান, উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান, শাহিনুর রহমান, ওয়েভ ফাউন্ডেশনের কামরুজ্জামান যুদ্ধ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, জীবননগর উপজেলাকে বাল্যবিয়েমুক্ত করতে বাল্যবিয়ে দেয়ার কাজে সহযোগিতাকারী, কাজী এবং অভিভাবকদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে। এছাড়া মতবিনিময় সভায় উপস্থিত সকলেই দাবি তোলেন বিয়ের আগে বয়স প্রমাণের জন্য সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছ থেকে প্রত্যয়নপত্র নিতে হবে।

ইউপি চেয়ারম্যানের প্রত্যয়নপত্র ছাড়া কোনো কাজী বিয়ে পড়ালে ওই কাজির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে। মতবিনিময় সভায় উপজেলার ৩৪ মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও মাদরাসার পরিচালনা পর্যদের সভাপতি এবং প্রধান শিক্ষক, লোকমোর্চার সদস্য, সাংবাদিক, সুধী বৃন্দসহ শতাধিক মানুষ উপস্থিত ছিলেন।