ঢাকা ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জুমার বয়ানকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, নারীসহ আহত ১৫

বাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০৮:৩০:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১১ জুন ২০২১ ১৬৫ বার পড়া হয়েছে

১১ জুন ২০২১, আজকের মেঘনা. কম, বাহ্মণবাড়িয়া সংবাদ দাতা:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদরে জুমার নামাজে মসজিদের খতিবের বয়ানকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় গোষ্ঠীর অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার (১১ জুন) জুমার নামাজের পর উপজেলার সুহিলপুর ইউনিয়নের গোপীনাথপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে

জানা যায়, গোপীনাথপুর গ্রামের হাজী গোষ্ঠী ও ভূইয়া গোষ্ঠীর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। শুক্রবার স্থানীয় মসজিদে জুমার নামাজে খতিব মাদক ও সন্ত্রাসবিরোধী বয়ান রাখেন। জুমার নামাজের পর মসজিদ থেকে বের হয়ে ভূইয়া গোষ্ঠীর চুনু মিয়ার ছেলে শিপন মিয়া ও হাজী গোষ্ঠীর রশিদ মিয়ার ছেলে খায়ের মিয়া এনিয়ে তর্কবিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে দুই গোষ্ঠীর লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে অন্তত ১৫ জন আহত হন।

আহতদের মধ্যে হাজী গোষ্ঠীর মোশারফ হোসেন (৪০), খায়ের মিয়া (৩৫), রশিদ মিয়া, সিরাজ মিয়া (৬০), রহিজ মিয়া (৬৫), বাহার মিয়া (৫৫), রশিদ মিয়া, জাবের হোসেন (৩৫), ভূইয়া গোষ্ঠীর শিপন (৪০), কামাল মিয়া (৫০), এমরান (৩০), হাবিবুল্লাহ(২৫), মরিয়ম (৩০, হোসনে আরা বেগমের (৬৫) নাম জানা গেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

ট্যাগস :

জুমার বয়ানকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, নারীসহ আহত ১৫

আপডেট সময় : ০৮:৩০:৫২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১১ জুন ২০২১

১১ জুন ২০২১, আজকের মেঘনা. কম, বাহ্মণবাড়িয়া সংবাদ দাতা:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সদরে জুমার নামাজে মসজিদের খতিবের বয়ানকে কেন্দ্র করে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় গোষ্ঠীর অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার (১১ জুন) জুমার নামাজের পর উপজেলার সুহিলপুর ইউনিয়নের গোপীনাথপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে

জানা যায়, গোপীনাথপুর গ্রামের হাজী গোষ্ঠী ও ভূইয়া গোষ্ঠীর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। শুক্রবার স্থানীয় মসজিদে জুমার নামাজে খতিব মাদক ও সন্ত্রাসবিরোধী বয়ান রাখেন। জুমার নামাজের পর মসজিদ থেকে বের হয়ে ভূইয়া গোষ্ঠীর চুনু মিয়ার ছেলে শিপন মিয়া ও হাজী গোষ্ঠীর রশিদ মিয়ার ছেলে খায়ের মিয়া এনিয়ে তর্কবিতর্কে জড়িয়ে পড়েন। তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে দুই গোষ্ঠীর লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে অন্তত ১৫ জন আহত হন।

আহতদের মধ্যে হাজী গোষ্ঠীর মোশারফ হোসেন (৪০), খায়ের মিয়া (৩৫), রশিদ মিয়া, সিরাজ মিয়া (৬০), রহিজ মিয়া (৬৫), বাহার মিয়া (৫৫), রশিদ মিয়া, জাবের হোসেন (৩৫), ভূইয়া গোষ্ঠীর শিপন (৪০), কামাল মিয়া (৫০), এমরান (৩০), হাবিবুল্লাহ(২৫), মরিয়ম (৩০, হোসনে আরা বেগমের (৬৫) নাম জানা গেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।