ঢাকা ১১:৫৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মালয়েশিয়ায় করোনায় বাংলাদেশির মৃত্যু

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৬:৫০:৪০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১ ২২০ বার পড়া হয়েছে

১৭ জুন ২০২১, আজকের মেঘনা. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

দীর্ঘ এক মাস করোনাভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করে মোহাম্মদ হাসান নামে মালয়েশিয়া প্রবাসী এক বাংলাদেশি মারা গেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) স্থানীয় সময় সকাল নয়টার দিকে তিনি মারা যান। মোহাম্মদ হাসানের পাসপোর্ট নম্বর BN-0341479। পাসপোর্ট থেকে জানা গেছে তার জন্ম তারিখ ১৯৭৫ সালের ১০ ডিসেম্বর। বাংলাদেশে তার বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলায়।

গত ১৫ ই মে থেকে শারীরিক অসুস্থতা বোধ করেন মোহাম্মদ হাসান। ২৫ মে থেকে থেকে শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখা দেয়। কোম্পানিকে বিষয়টি জানালে তার করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়। পরীক্ষায় ফল পজিটিভ আসে। সঙ্গে সঙ্গে তাকে কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়। চার-পাঁচ দিন পর তার শ্বাসকষ্টের সমস্যা দেখা দেয়। পরে তাকে সুনগাই বুলহ হাসপাতালে কোভিড-১৯ ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

নিবিড় পর্যবেক্ষণ-চিকিৎসাতেও তার শ্বাসকষ্টের সমস্যার উন্নতি হচ্ছিল না। শেষ পর্যন্ত আজ সকালে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে।

পরিবার ও মালয়েশিয়ার মালিকপক্ষ হাসানের মরদেহ দেশে পাঠানোর আবেদন জানালে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মরদেহ দিতে অপারগতা প্রকাশ করে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, করোনা সংক্রামণ যাতে না ছড়ায় সে কারণে তার মরদেহ দেওয়া হবে না। তবে ইসলামি নিয়ম অনুসারে হাসানের মরদেহ দাফন করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

ট্যাগস :

মালয়েশিয়ায় করোনায় বাংলাদেশির মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৬:৫০:৪০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১

১৭ জুন ২০২১, আজকের মেঘনা. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

দীর্ঘ এক মাস করোনাভাইরাসের সঙ্গে যুদ্ধ করে মোহাম্মদ হাসান নামে মালয়েশিয়া প্রবাসী এক বাংলাদেশি মারা গেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) স্থানীয় সময় সকাল নয়টার দিকে তিনি মারা যান। মোহাম্মদ হাসানের পাসপোর্ট নম্বর BN-0341479। পাসপোর্ট থেকে জানা গেছে তার জন্ম তারিখ ১৯৭৫ সালের ১০ ডিসেম্বর। বাংলাদেশে তার বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলায়।

গত ১৫ ই মে থেকে শারীরিক অসুস্থতা বোধ করেন মোহাম্মদ হাসান। ২৫ মে থেকে থেকে শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখা দেয়। কোম্পানিকে বিষয়টি জানালে তার করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হয়। পরীক্ষায় ফল পজিটিভ আসে। সঙ্গে সঙ্গে তাকে কোয়ারেন্টাইনে নেওয়া হয়। চার-পাঁচ দিন পর তার শ্বাসকষ্টের সমস্যা দেখা দেয়। পরে তাকে সুনগাই বুলহ হাসপাতালে কোভিড-১৯ ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।

নিবিড় পর্যবেক্ষণ-চিকিৎসাতেও তার শ্বাসকষ্টের সমস্যার উন্নতি হচ্ছিল না। শেষ পর্যন্ত আজ সকালে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে।

পরিবার ও মালয়েশিয়ার মালিকপক্ষ হাসানের মরদেহ দেশে পাঠানোর আবেদন জানালে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মরদেহ দিতে অপারগতা প্রকাশ করে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, করোনা সংক্রামণ যাতে না ছড়ায় সে কারণে তার মরদেহ দেওয়া হবে না। তবে ইসলামি নিয়ম অনুসারে হাসানের মরদেহ দাফন করা হবে।