ঢাকা ০৩:৪০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কথা দিচ্ছি, মানুষের পাশে থাকবো: প্রধানমন্ত্রী

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৫:২৬:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ জুন ২০২১ ১৭৫ বার পড়া হয়েছে

২৯ জুন ২০২১, আজকের মেঘনা. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

করোনা মহামারিতে আওয়ামী লীগ সরকার মানুষের পাশে আছে, আগামীতেও মানুষের পাশে থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার (২৯ জুন) জাতীয় সংসদে উত্থাপিত আগামী ২০২১-২০২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের উপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি কথা জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সরকার সংকটকালে দেশের মানুষের পাশে আছে। মানুষের পাশে থাকবে। জনগণকে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি যে, জীবন-জীবিকার সুরক্ষা দেওয়া ও অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে কোনো উদ্যোগ নেওয়ার প্রয়োজন হলে দ্রুততার সঙ্গে সিদ্ধান্ত নেবো। মানুষের পাশে আমরা দাঁড়াবো।

বাজেটর উপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি বলেন, এমন সময় আমরা বাজেট দিয়েছি যখন করোনায় সারা বিশ্ব ক্ষতিগ্রস্ত। এই সময়ের মধ্যেই আমরা উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হতে সক্ষম হয়েছি। অর্থনৈতিক, সামাজিক উন্নয়ন যাতে গতিশীল থাকে সেদিকে লক্ষ্য রাখা হয়েছে। করোনাভাইরাসে সারা বিশ্ব যখন ক্ষতিগ্রস্ত এমন সময় আমরা বাজেট দিয়েছি। একদিকে সারা বিশ্ব করোনায় আক্রান্ত, অপরদিকে আমাদের জন্য এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ সময়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করছি। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করছি। একই সময় বাংলাদেশকে আমরা উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করতে পেরেছি। এই তিনটি গৌরবময় অধ্যায়ের মধ্যে করোনায় জর্জরিত। বিশ্ব পরিস্থিতিতে আমাদের মৃত্যুর হার কম। কিন্তু আমরা চাই না যে একজনও মৃত্যুবরণ করুক।

তিনি বলেন, করোনার প্রথম ঢেউ মোকাবিলায় আমরা সফল হয়েছি। দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায়ও সফল হবো ইনশাল্লাহ। মহামারির দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাব সত্ত্বেও সরকারের পদক্ষেপে আমাদের অর্থনীতি পূর্ণাঙ্গভাবে পুনরুদ্ধারের পথে রয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ যাতে কষ্ট না পায় সে ব্যবস্থা নিয়েছি। ১৪টি প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন হচ্ছে। এ পর্যন্ত ১ কোটি ১৯ লাখ মানুষ খাদ্য সহায়তা পেয়েছেন। ১ লাখ ৭৯ হাজার কৃষক ঋণ সুবিধা পেয়েছেন। এক হাজার ৮৩৩ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ করা হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, করোনার দ্বিতীয় পর্যায়ে ৩৫ লাখ পরিবারের মধ্যে আর্থিক সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। এই করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও আমাদের মাথাপিছু আয় বেড়ে ২২২৭ মার্কিন ডলারে উন্নীত হয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে। আমরা শ্রীলংকাকে ঋণ সহায়তা দিতে পেরেছি। এটা অর্থনৈকিভাবে আমাদের সক্ষমতা প্রমাণ হয়েছে এবং দেশের ভাবমূর্তি আন্তর্জাতিকভাবে বেড়েছে। ’

তিনি বলেন, লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। এই অর্জন বৃথা যেতে পারে না। সব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। এই বাজেট বাস্তবায়নে সক্ষম হবো, বাংলাদেশকে আরো সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবো।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

ট্যাগস :

কথা দিচ্ছি, মানুষের পাশে থাকবো: প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৫:২৬:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৯ জুন ২০২১

২৯ জুন ২০২১, আজকের মেঘনা. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

করোনা মহামারিতে আওয়ামী লীগ সরকার মানুষের পাশে আছে, আগামীতেও মানুষের পাশে থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঙ্গলবার (২৯ জুন) জাতীয় সংসদে উত্থাপিত আগামী ২০২১-২০২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের উপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি কথা জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সরকার সংকটকালে দেশের মানুষের পাশে আছে। মানুষের পাশে থাকবে। জনগণকে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি যে, জীবন-জীবিকার সুরক্ষা দেওয়া ও অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে কোনো উদ্যোগ নেওয়ার প্রয়োজন হলে দ্রুততার সঙ্গে সিদ্ধান্ত নেবো। মানুষের পাশে আমরা দাঁড়াবো।

বাজেটর উপর আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি বলেন, এমন সময় আমরা বাজেট দিয়েছি যখন করোনায় সারা বিশ্ব ক্ষতিগ্রস্ত। এই সময়ের মধ্যেই আমরা উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হতে সক্ষম হয়েছি। অর্থনৈতিক, সামাজিক উন্নয়ন যাতে গতিশীল থাকে সেদিকে লক্ষ্য রাখা হয়েছে। করোনাভাইরাসে সারা বিশ্ব যখন ক্ষতিগ্রস্ত এমন সময় আমরা বাজেট দিয়েছি। একদিকে সারা বিশ্ব করোনায় আক্রান্ত, অপরদিকে আমাদের জন্য এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ সময়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন করছি। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করছি। একই সময় বাংলাদেশকে আমরা উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত করতে পেরেছি। এই তিনটি গৌরবময় অধ্যায়ের মধ্যে করোনায় জর্জরিত। বিশ্ব পরিস্থিতিতে আমাদের মৃত্যুর হার কম। কিন্তু আমরা চাই না যে একজনও মৃত্যুবরণ করুক।

তিনি বলেন, করোনার প্রথম ঢেউ মোকাবিলায় আমরা সফল হয়েছি। দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায়ও সফল হবো ইনশাল্লাহ। মহামারির দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাব সত্ত্বেও সরকারের পদক্ষেপে আমাদের অর্থনীতি পূর্ণাঙ্গভাবে পুনরুদ্ধারের পথে রয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ যাতে কষ্ট না পায় সে ব্যবস্থা নিয়েছি। ১৪টি প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন হচ্ছে। এ পর্যন্ত ১ কোটি ১৯ লাখ মানুষ খাদ্য সহায়তা পেয়েছেন। ১ লাখ ৭৯ হাজার কৃষক ঋণ সুবিধা পেয়েছেন। এক হাজার ৮৩৩ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ করা হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, করোনার দ্বিতীয় পর্যায়ে ৩৫ লাখ পরিবারের মধ্যে আর্থিক সহায়তা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। এই করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও আমাদের মাথাপিছু আয় বেড়ে ২২২৭ মার্কিন ডলারে উন্নীত হয়েছে। বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলারে দাঁড়িয়েছে। আমরা শ্রীলংকাকে ঋণ সহায়তা দিতে পেরেছি। এটা অর্থনৈকিভাবে আমাদের সক্ষমতা প্রমাণ হয়েছে এবং দেশের ভাবমূর্তি আন্তর্জাতিকভাবে বেড়েছে। ’

তিনি বলেন, লাখো শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমরা স্বাধীনতা অর্জন করেছি। এই অর্জন বৃথা যেতে পারে না। সব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। এই বাজেট বাস্তবায়নে সক্ষম হবো, বাংলাদেশকে আরো সামনে এগিয়ে নিয়ে যাবো।