ঢাকা ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় ‘বাধা’ দিচ্ছে সরকার: বিএনপি

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৯:২৬:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ জুলাই ২০২১ ১৭২ বার পড়া হয়েছে

০৬ জুলাই ২০২১, আজকের মেঘনা. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার পথে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে দলটি অভিযোগ করেছে।

মঙ্গলবার (৭ জুলাই) রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স এ অভিযোগ করেন।

প্রিন্স বলেছেন, আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়া বর্তমানে গুরুতর অসুস্থ। গত মে মাসে তার পরিবারের সদস্যরা তাকে বিদেশে পাঠানোর জন্য একটি আবেদন জমা দিয়েছে। এ সময় আইনমন্ত্রী নিজেই বলেছেন খালেদা জিয়াকে যে শর্তে মুক্তি দেওয়া হয়েছে তার মধ্যে যদি বিদেশ ভ্রমণ সম্ভব হয় তবে তাকে যেতে দেয়া হবে।

বিএনপি নেতা বলেন, আইনমন্ত্রীর এ জাতীয় মন্তব্য বিবিসি ও আল-জাজিরাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। তবে এখন তিনি (আইনমন্ত্রী) বলছেন যে ইউ-টার্ন তৈরি করা সম্ভব নয়। এর মাধ্যমে এটি প্রকাশ পেয়েছে যে সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে আমাদের নেত্রীর চিকিৎসায় বাধা দিচ্ছে।

প্রিন্স খালেদা জিয়াকে কারাগারে ফিরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে সরকারের পুনর্বিবেচনা করা দরকার বলে তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদের করা মন্তব্যের সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, দেশের এই কঠিন সময়ে বিএনপি মানুষের পক্ষে আওয়াজ তুলছে বলে মন্ত্রী এমন হুমকি দিয়েছেন। সরকা তার ব্যর্থতা লুকাতে বিএনপির বিরুদ্ধে প্রচারণা চালিয়ে এবং জেল ও দমন-হুমকির মাধ্যমে জনগণকে ধোঁকা দেওয়ার চেষ্টা করছে।

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বলেছেন, তাদের দলের প্রধান জেল থেকে এখনও পুরোপুরি মুক্তি পাননি। কারণ তিনি বিভিন্ন শর্তে একরকম কারাগারেই রয়েছেন। সরকার এখন এসব শর্ত দিয়ে তার চিকিৎসা বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করছে।

প্রিন্স অভিযোগ করেন, সারাদেশে কঠোর লকডাউনের মধ্যে পুলিশ চাট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, কিশোরগঞ্জ, বাগেরহাটসহ বিভিন্ন জেলায় বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করছে।

রোববার মুন্সিগঞ্জের উত্তর মোক্তারপাড়ার দিনমজুর দিন ইসলাম ক্ষুধার জ্বালায় আত্মহত্যা করেছেন বলে উল্লেখ করে তিনি অভিযোগ করেন, লকডাউনের সময় সরকার দরিদ্র ও অসহায় মানুষকে প্রয়োজনীয় ত্রাণ সহায়তা দিচ্ছে না।

প্রিন্স সরকারি পরিবহনকর্মী, হকার, দোকান শ্রমিক, ছোট ব্যবসায়ী ও দিনমজুরসহ লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্থ স্বল্প আয়ের এবং বেকার লোকদের পর্যাপ্ত খাদ্য ও আর্থিক সহায়তা নিশ্চিত করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

বিএনপির অনেক নেতা আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়ার চেষ্টা করছে- ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের এ ধরনের মন্তব্যকে প্রত্যাখ্যান করেছেন প্রিন্স। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ এখন একটি ‘ডুবে’যাওয়া জাহাজ। কেউ ‘ডুবে’ যাওয়া জাহাজে উঠতে চায় না। যারা ‘ডুবে’ যাওয়া জাহাজের যাত্রী তারা তাদের ব্যর্থতা আড়াল করতে এ জাতীয় মন্তব্য করছেন। আপনি বরং ভবিষ্যতে দেখতে পাবেন যে কত লোক নিজেকে বাঁচাতে ‘ডুবে’ যাওয়া জাহাজ থেকে ঝাঁপিয়ে পড়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

ট্যাগস :

খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় ‘বাধা’ দিচ্ছে সরকার: বিএনপি

আপডেট সময় : ০৯:২৬:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ জুলাই ২০২১

০৬ জুলাই ২০২১, আজকের মেঘনা. কম, ডেস্ক রিপোর্টঃ

সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসার পথে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছে বলে দলটি অভিযোগ করেছে।

মঙ্গলবার (৭ জুলাই) রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স এ অভিযোগ করেন।

প্রিন্স বলেছেন, আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়া বর্তমানে গুরুতর অসুস্থ। গত মে মাসে তার পরিবারের সদস্যরা তাকে বিদেশে পাঠানোর জন্য একটি আবেদন জমা দিয়েছে। এ সময় আইনমন্ত্রী নিজেই বলেছেন খালেদা জিয়াকে যে শর্তে মুক্তি দেওয়া হয়েছে তার মধ্যে যদি বিদেশ ভ্রমণ সম্ভব হয় তবে তাকে যেতে দেয়া হবে।

বিএনপি নেতা বলেন, আইনমন্ত্রীর এ জাতীয় মন্তব্য বিবিসি ও আল-জাজিরাসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ও স্থানীয় গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। তবে এখন তিনি (আইনমন্ত্রী) বলছেন যে ইউ-টার্ন তৈরি করা সম্ভব নয়। এর মাধ্যমে এটি প্রকাশ পেয়েছে যে সরকার ইচ্ছাকৃতভাবে আমাদের নেত্রীর চিকিৎসায় বাধা দিচ্ছে।

প্রিন্স খালেদা জিয়াকে কারাগারে ফিরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে সরকারের পুনর্বিবেচনা করা দরকার বলে তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদের করা মন্তব্যের সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, দেশের এই কঠিন সময়ে বিএনপি মানুষের পক্ষে আওয়াজ তুলছে বলে মন্ত্রী এমন হুমকি দিয়েছেন। সরকা তার ব্যর্থতা লুকাতে বিএনপির বিরুদ্ধে প্রচারণা চালিয়ে এবং জেল ও দমন-হুমকির মাধ্যমে জনগণকে ধোঁকা দেওয়ার চেষ্টা করছে।

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বলেছেন, তাদের দলের প্রধান জেল থেকে এখনও পুরোপুরি মুক্তি পাননি। কারণ তিনি বিভিন্ন শর্তে একরকম কারাগারেই রয়েছেন। সরকার এখন এসব শর্ত দিয়ে তার চিকিৎসা বাধাগ্রস্ত করার চেষ্টা করছে।

প্রিন্স অভিযোগ করেন, সারাদেশে কঠোর লকডাউনের মধ্যে পুলিশ চাট্টগ্রাম, ময়মনসিংহ, কিশোরগঞ্জ, বাগেরহাটসহ বিভিন্ন জেলায় বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করছে।

রোববার মুন্সিগঞ্জের উত্তর মোক্তারপাড়ার দিনমজুর দিন ইসলাম ক্ষুধার জ্বালায় আত্মহত্যা করেছেন বলে উল্লেখ করে তিনি অভিযোগ করেন, লকডাউনের সময় সরকার দরিদ্র ও অসহায় মানুষকে প্রয়োজনীয় ত্রাণ সহায়তা দিচ্ছে না।

প্রিন্স সরকারি পরিবহনকর্মী, হকার, দোকান শ্রমিক, ছোট ব্যবসায়ী ও দিনমজুরসহ লকডাউনে ক্ষতিগ্রস্থ স্বল্প আয়ের এবং বেকার লোকদের পর্যাপ্ত খাদ্য ও আর্থিক সহায়তা নিশ্চিত করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

বিএনপির অনেক নেতা আওয়ামী লীগে যোগ দেওয়ার চেষ্টা করছে- ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের এ ধরনের মন্তব্যকে প্রত্যাখ্যান করেছেন প্রিন্স। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ এখন একটি ‘ডুবে’যাওয়া জাহাজ। কেউ ‘ডুবে’ যাওয়া জাহাজে উঠতে চায় না। যারা ‘ডুবে’ যাওয়া জাহাজের যাত্রী তারা তাদের ব্যর্থতা আড়াল করতে এ জাতীয় মন্তব্য করছেন। আপনি বরং ভবিষ্যতে দেখতে পাবেন যে কত লোক নিজেকে বাঁচাতে ‘ডুবে’ যাওয়া জাহাজ থেকে ঝাঁপিয়ে পড়েছে।