ঢাকা ০২:৫২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মানবিক “প্রবাসী হোসেন আলী”

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০১:৫৭:৪৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মার্চ ২০২৩ ৮৫ বার পড়া হয়েছে

২৬ মার্চ ২০২৩ ইং, আজকের মেঘনা ডটকম, 

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

মানুষ মানুষের জন্য, এই কথার মর্মতা বুঝা যায় সৌদি প্রবাসী হোসেন আলীর কর্মযজ্ঞে। একজন রেমিট্যান্স যোদ্ধা, পরিবারের মুখে হাসি দেখতে পরিবার, স্বজন – ত্যাগ করে আছেন প্রবাসে। তাতে কি?  হৃদয়ে দেশ ও মানব প্রেম লালন করে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন এলাকার মানুষের জন্য কিছু করার । প্রবাসে নিজের কাজ কর্ম শেষ করে এলাকার উন্নয়ন ও মানুষের বিপদে পাশে থাকার জন্য  চেষ্টার কোন ত্রুটি নেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব থাকেন সবসময়, এলাকার মানুষের খুঁজ খবর রাখেন। প্রবাসে থেকেও নাগরিক সাংবাদিকতা করেন। শুধুই দেশপ্রেম থেকে । হৃদয়ে মানুষের প্রতি ভালোবাসা অবিরাম ইতিমধ্যেই অসুস্থ অসহায়দের পাশে থেকে প্রমাণ করেছেন। দেশে  অনেক দায়িত্বশীল থাকার পরেও ঐসব সমস্যায় জর্জরিত মানুষের আর্তনাদ কানে না পৌঁছলেও পৌঁছেছে হোসেন আলীর কানে। হোসেন আলী মেঘনা উপজেলার মহেশ খোলা গ্রামের কৃতি সন্তান। থাকেন সৌদিতে। সাম্প্রতিক সময়ে পাশের গ্রামের একজনের অর্থের অভাবে চোখের চিকিৎসা করাতে পারছেনা এমন সংবাদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পেয়ে হোসেন আলী সেই প্রবাস থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রবাসী বন্ধু এবং দেশের মানবিক মানুষের সাথে যোগাযোগ করে অর্থের ব্যবস্থা করে দেন চোখের চিকিৎসার জন্য পরবর্তীতে চোখের চিকিৎসা করে তিনি এখন সুস্থ। একই ভাবে আনোয়ার হোসেন নামের এক ব্যক্তি অর্থের অভাবে দীর্ঘদিন যাবত চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত ছিলেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হোসেন আলী ও তার প্রবাসী বন্ধুরা মিলে( যাদের সকলের নাম না জানায় উল্লেখ করা যাচ্ছেনা) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নেমে পড়ে অর্থ সংগ্রহের জন্য। এলাকার অনেক ধনাঢ্য ব্যক্তিরা হোসেন আলীদের ডাকে সাড়া দিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়ায়। অসুস্থ আনোয়ার হোসেন তার ফেসবুক আইডিতে চিকিৎসার অর্থ পেয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন হোসেন আলী সহ সহযোগী সকলের প্রতি।আনোয়ার হোসেন বলেছেন চিকিৎসার জন্য যে অর্থ প্রয়োজন তা তিনি পেয়েছেন, এখন চিকিৎসা করাতে চিকিৎসকের কাছে যাবেন। এমন গোপনে ও অনেকের পাশে দাঁড়িয়েছেন প্রবাসী হোসেন আলীর বন্ধু মহল। যা মানবিকতার বিশুদ্ধ চর্চা। হোসেন আলীরা আছে বলেই মানবতা বেচে আছে। কাড়ি কাড়ি অর্থের তোয়াক্কা না করে শুধু মনোবল চাঙ্গা রেখে মানবিক হয়ে প্রবাসে থেকে এলাকার অসহায়দের সহায়তা করে যাচ্ছেন একঝাঁক মানবিক প্রবাসী হোসেন আলী। বেচে থাকুক প্রবাসীরা সহায়তা করুক অসহাদের, মানবিকতার বিশুদ্ধ চর্চা করতে হোসেন আলীদের পাশে থাকতে হবে ধনাঢ্য ব্যক্তিরা।মানবিকতায়  যুক্ত হোক নতুন নতুন প্রবাসী হোসেন আলীরা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

মানবিক “প্রবাসী হোসেন আলী”

আপডেট সময় : ০১:৫৭:৪৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৬ মার্চ ২০২৩

২৬ মার্চ ২০২৩ ইং, আজকের মেঘনা ডটকম, 

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

মানুষ মানুষের জন্য, এই কথার মর্মতা বুঝা যায় সৌদি প্রবাসী হোসেন আলীর কর্মযজ্ঞে। একজন রেমিট্যান্স যোদ্ধা, পরিবারের মুখে হাসি দেখতে পরিবার, স্বজন – ত্যাগ করে আছেন প্রবাসে। তাতে কি?  হৃদয়ে দেশ ও মানব প্রেম লালন করে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন এলাকার মানুষের জন্য কিছু করার । প্রবাসে নিজের কাজ কর্ম শেষ করে এলাকার উন্নয়ন ও মানুষের বিপদে পাশে থাকার জন্য  চেষ্টার কোন ত্রুটি নেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সরব থাকেন সবসময়, এলাকার মানুষের খুঁজ খবর রাখেন। প্রবাসে থেকেও নাগরিক সাংবাদিকতা করেন। শুধুই দেশপ্রেম থেকে । হৃদয়ে মানুষের প্রতি ভালোবাসা অবিরাম ইতিমধ্যেই অসুস্থ অসহায়দের পাশে থেকে প্রমাণ করেছেন। দেশে  অনেক দায়িত্বশীল থাকার পরেও ঐসব সমস্যায় জর্জরিত মানুষের আর্তনাদ কানে না পৌঁছলেও পৌঁছেছে হোসেন আলীর কানে। হোসেন আলী মেঘনা উপজেলার মহেশ খোলা গ্রামের কৃতি সন্তান। থাকেন সৌদিতে। সাম্প্রতিক সময়ে পাশের গ্রামের একজনের অর্থের অভাবে চোখের চিকিৎসা করাতে পারছেনা এমন সংবাদ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পেয়ে হোসেন আলী সেই প্রবাস থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রবাসী বন্ধু এবং দেশের মানবিক মানুষের সাথে যোগাযোগ করে অর্থের ব্যবস্থা করে দেন চোখের চিকিৎসার জন্য পরবর্তীতে চোখের চিকিৎসা করে তিনি এখন সুস্থ। একই ভাবে আনোয়ার হোসেন নামের এক ব্যক্তি অর্থের অভাবে দীর্ঘদিন যাবত চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত ছিলেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে হোসেন আলী ও তার প্রবাসী বন্ধুরা মিলে( যাদের সকলের নাম না জানায় উল্লেখ করা যাচ্ছেনা) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নেমে পড়ে অর্থ সংগ্রহের জন্য। এলাকার অনেক ধনাঢ্য ব্যক্তিরা হোসেন আলীদের ডাকে সাড়া দিয়ে সহযোগিতার হাত বাড়ায়। অসুস্থ আনোয়ার হোসেন তার ফেসবুক আইডিতে চিকিৎসার অর্থ পেয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন হোসেন আলী সহ সহযোগী সকলের প্রতি।আনোয়ার হোসেন বলেছেন চিকিৎসার জন্য যে অর্থ প্রয়োজন তা তিনি পেয়েছেন, এখন চিকিৎসা করাতে চিকিৎসকের কাছে যাবেন। এমন গোপনে ও অনেকের পাশে দাঁড়িয়েছেন প্রবাসী হোসেন আলীর বন্ধু মহল। যা মানবিকতার বিশুদ্ধ চর্চা। হোসেন আলীরা আছে বলেই মানবতা বেচে আছে। কাড়ি কাড়ি অর্থের তোয়াক্কা না করে শুধু মনোবল চাঙ্গা রেখে মানবিক হয়ে প্রবাসে থেকে এলাকার অসহায়দের সহায়তা করে যাচ্ছেন একঝাঁক মানবিক প্রবাসী হোসেন আলী। বেচে থাকুক প্রবাসীরা সহায়তা করুক অসহাদের, মানবিকতার বিশুদ্ধ চর্চা করতে হোসেন আলীদের পাশে থাকতে হবে ধনাঢ্য ব্যক্তিরা।মানবিকতায়  যুক্ত হোক নতুন নতুন প্রবাসী হোসেন আলীরা।