ঢাকা ০৪:১২ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ মে ২০২৪, ২৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন নিজের দেশেই থাকব: ড. ইউনূস

ডেস্ক রিপোর্ট
  • আপডেট সময় : ০৮:৪৯:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ২১ বার পড়া হয়েছে

পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন নিজের দেশেই থাকবেন বলে জানিয়েছেন শান্তিতে নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ ইউনূস৷ সম্প্রতি “ডয়চে ভেলে খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়” অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তিনি একথা বলেন।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে স্থায়ীভাবে বসবাস ও সামাজিক ব্যবসা পরিচালনার আমন্ত্রণ থাকলেও তিনি কেন বাংলাদেশে থাকছেন সঞ্চালক খালেদ মুহিউদ্দীনের এমন প্রশ্নের জবাবে গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ড. ইউনূস বলেন, “তুমি কি বলছো আমি দেশ থেকে চলে যাই? এমন কুসন্তান হলাম আমি যে আমাকে দেশ ছেড়ে চলে যেতে হবে? আমি এই দেশের সন্তান, এই দেশেই থাকব।”
সামাজিক ব্যবসা ও উদ্যোক্তা হওয়ার বিষয়ে ১২ থেকে ৩৫ বছরের জনগোষ্ঠীকে উৎসাহ দিয়ে তিনি বলেন, “আমাদের জন্ম হয়েছে চাকরি করার জন্য না। আমরা সবাই উদ্যোক্তা৷”

সাক্ষাৎকারে ক্ষুদ্রঋণ, সামাজিক ব্যবসা, নিজের বিরুদ্ধে চলমান মামলাসহ নানা প্রসঙ্গে খোলামেলা কথা বলেন বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী ড. ইউনূস।

গণতন্ত্র নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমরা কেউ গণতন্ত্রের বিপক্ষে না, আমরা গণতন্ত্রের পক্ষে, মানবাধিকারের পক্ষে, ন্যায়-নীতির পক্ষে। এগুলো না থাকলে তো জাতি হিসেবে আমরা টিকে থাকব না।”

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমার মনে হয় উনি মনে করেন, আমি দেশের সর্বোচ্চ ডাকু, সন্ত্রাসী কিংবা আমি অপরাধী, সেরা চোর। আমাকে বলেন আমি সুদখোর, ঘুষখোর।”

কর ফাঁকি দেওয়া প্রসঙ্গে প্রশ্নের জবাবে ড. ইউনূস বলেন, “আমার টাকা, আমি রোজগার করি, আমি নিজে সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমি মালিক হব না৷ যেহেতু আমি মালিক হব না তাই আমি ট্রাস্টে দিয়ে দিতে চাচ্ছি। আমাদের আইনজীবী বলেছেন, আপনি যেহেতু দান করছেন, এটাতে আর কর দেওয়ার কোনো বিষয় নেই।”

তবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর দিতে বলার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই কর পরিশোধ করেছেন বলে জানান ড. ইউনূস।

প্রচলিত আইন অনুসারে প্রতিষ্ঠানের লভ্যাংশের ৫% কর্মীদের দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, “যেখানে মালিক মুনাফা পায় না সেখানে শ্রমিক কিভাবে মুনাফা পাবেন? এই প্রতিষ্ঠান তো মুনাফা তৈরি করে না।”

দেশের টাকা বিদেশে পাচারের ক্ষেত্রে সরকারের করণীয় কী হতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করা। আইনটা প্রয়োগ করতে হবে তো। সমস্ত বিষয়টা আইনের ব্যাপার।”

সম্প্রতি ড. ইউনূস সংবাদ সম্মেলন করে তার প্রতিষ্ঠান জবর দখল হওয়ার অভিযোগ করেন। এই বিষয়ে তিনি বলেন, “আমরা ভয়ের মধ্যে আছি। আমাদের বিল্ডিংয়ের সামনে দলীয় লোকজন সভা করছে। আমরা খুবই সংকটময় অবস্থার মধ্যে আছি।”

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন নিজের দেশেই থাকব: ড. ইউনূস

আপডেট সময় : ০৮:৪৯:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পরিস্থিতি যেমনই হোক না কেন নিজের দেশেই থাকবেন বলে জানিয়েছেন শান্তিতে নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ ইউনূস৷ সম্প্রতি “ডয়চে ভেলে খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়” অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তিনি একথা বলেন।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে স্থায়ীভাবে বসবাস ও সামাজিক ব্যবসা পরিচালনার আমন্ত্রণ থাকলেও তিনি কেন বাংলাদেশে থাকছেন সঞ্চালক খালেদ মুহিউদ্দীনের এমন প্রশ্নের জবাবে গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ড. ইউনূস বলেন, “তুমি কি বলছো আমি দেশ থেকে চলে যাই? এমন কুসন্তান হলাম আমি যে আমাকে দেশ ছেড়ে চলে যেতে হবে? আমি এই দেশের সন্তান, এই দেশেই থাকব।”
সামাজিক ব্যবসা ও উদ্যোক্তা হওয়ার বিষয়ে ১২ থেকে ৩৫ বছরের জনগোষ্ঠীকে উৎসাহ দিয়ে তিনি বলেন, “আমাদের জন্ম হয়েছে চাকরি করার জন্য না। আমরা সবাই উদ্যোক্তা৷”

সাক্ষাৎকারে ক্ষুদ্রঋণ, সামাজিক ব্যবসা, নিজের বিরুদ্ধে চলমান মামলাসহ নানা প্রসঙ্গে খোলামেলা কথা বলেন বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল বিজয়ী ড. ইউনূস।

গণতন্ত্র নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমরা কেউ গণতন্ত্রের বিপক্ষে না, আমরা গণতন্ত্রের পক্ষে, মানবাধিকারের পক্ষে, ন্যায়-নীতির পক্ষে। এগুলো না থাকলে তো জাতি হিসেবে আমরা টিকে থাকব না।”

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “আমার মনে হয় উনি মনে করেন, আমি দেশের সর্বোচ্চ ডাকু, সন্ত্রাসী কিংবা আমি অপরাধী, সেরা চোর। আমাকে বলেন আমি সুদখোর, ঘুষখোর।”

কর ফাঁকি দেওয়া প্রসঙ্গে প্রশ্নের জবাবে ড. ইউনূস বলেন, “আমার টাকা, আমি রোজগার করি, আমি নিজে সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমি মালিক হব না৷ যেহেতু আমি মালিক হব না তাই আমি ট্রাস্টে দিয়ে দিতে চাচ্ছি। আমাদের আইনজীবী বলেছেন, আপনি যেহেতু দান করছেন, এটাতে আর কর দেওয়ার কোনো বিষয় নেই।”

তবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর দিতে বলার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই কর পরিশোধ করেছেন বলে জানান ড. ইউনূস।

প্রচলিত আইন অনুসারে প্রতিষ্ঠানের লভ্যাংশের ৫% কর্মীদের দেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, “যেখানে মালিক মুনাফা পায় না সেখানে শ্রমিক কিভাবে মুনাফা পাবেন? এই প্রতিষ্ঠান তো মুনাফা তৈরি করে না।”

দেশের টাকা বিদেশে পাচারের ক্ষেত্রে সরকারের করণীয় কী হতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করা। আইনটা প্রয়োগ করতে হবে তো। সমস্ত বিষয়টা আইনের ব্যাপার।”

সম্প্রতি ড. ইউনূস সংবাদ সম্মেলন করে তার প্রতিষ্ঠান জবর দখল হওয়ার অভিযোগ করেন। এই বিষয়ে তিনি বলেন, “আমরা ভয়ের মধ্যে আছি। আমাদের বিল্ডিংয়ের সামনে দলীয় লোকজন সভা করছে। আমরা খুবই সংকটময় অবস্থার মধ্যে আছি।”